জেলার খবর

টাঙ্গাইলে তিন ছাত্রীকে অপহরণের পর গণধর্ষণ

কামরান পারভেজ ইভান, টাঙ্গাইল প্রতিনিধি : টাঙ্গাইলের ঘাটাইলে স্কুল থেকে বেড়াতে গিয়ে গণধর্ষণের শিকার হয়েছে নবম শ্রেণিতে পড়ুয়া তিন ছাত্রী। রোববার সন্ধ্যায় উপজেলার সাতকুয়া পাহাড়ি এলাকায় এঘটনা ঘটে। এঘটনায় এক ছাত্রীর বাবা বাদি হয়ে আজ দুপুরে অজ্ঞাতনামা ৫-৭ জনের বিরুদ্ধে ঘাটাইল থানায় মামলা দায়ের করলেও এখন পর্যন্ত কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ।

জানা যায়, গত ২৬ জানুয়ারী রবিবার টাঙ্গাইলের ঘাটাইল সালেহা ইউসুফজাই বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের এসএসসি পরীক্ষার্থীদের দোয়া ও বিদায় মাহফিলের অনুষ্ঠান ছিলো। ওই বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির চার ছাত্রী বিদ্যালয়ে এসে পাহাড়ি এলাকায় ঘুরতে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। দুপুর দেড়টায় তারা ঝড়কা গেলে তাদের সাথে যোগ দেয় বন্ধু হৃদয় ও শাহীন। পরে তারা ব্যাটারি চালিত অটোরিক্সা যোগে সাতকুয়া এলাকায় গেলে ৫-৭জন অজ্ঞাতব্যক্তি তাদের ঘিরে ফেলে।

এসময় তাদের বন্ধু হৃদয় ও শাহীনকে মারধর করে তিনজনকে ধর্ষণ করে এবং অপর একজনকে ভাগ্নির মতো দেখা যায় বলে তাকে ধর্ষণ করা থেকে বিরত থাকে। দুপুর ২টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত আটকে রেখে উপর্যুপরি ধর্ষণ করে পালিয়ে যায় ধর্ষকরা। পরে ওই চার ছাত্রী তাদের একজনের নানীর বাড়িতে আশ্রয় নেয়। সেখান থেকে মোবাইল ফোনে অভিভাবকদের বিষয়টি জানালে তারা পুলিশকে খবর দেয় ।

পরে পুলিশ তাদের উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। এঘটনায় আজ দুপুরে এক ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা ৫-৭ জনের বিরুদ্ধে ঘাটাইল থানায় মামলা দায়ের করেন। তবে এঘটনায় এক স্কুল ছাত্রীর চাচী জানান, যারা এধরনের ন্যাক্কারজনক ঘটনা ঘটিয়েছে তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবী করছি।

টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালের মেডিক্যাল অফিসার ডাক্তার মো: তানভীর আহমেদ জানান, চার স্কুল শিক্ষার্থী শারীরিকভাবে কিছুটা ভালো থাকলেও মানসিকভাবে তারা বিপর্যস্ত। মেডিক্যাল টীম গঠন করে তাদের চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

ঘাটাইল থানার ওসি তদন্ত মো.সাইফুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, এঘটনায় মামলা হয়েছে। আসামিদের দ্রুত গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

Related Post